টিসিবির ট্রাকে ক্রেতাদের ভিড়

ভোগ্যপণ্যে অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তের নাভিশ্বাস অবস্থা। রমজানকে সামনে রেখে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ছে। ফলে কিছুটা সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য কিনতে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ট্রাকে ভিড় করছে মানুষ। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ট্রাকে করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করছে টিসিবি। ন্যায্যমূল্যে চিনি, মসুর ডাল ও সয়াবিন তেল কিনতে দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করছে ক্রেতারা। তারা বলছেন, বাজারে এসব পণ্যের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়াতেই টিসিবির ট্রাকে যাচ্ছে তারা। এতে আগের তুলনায় টিসিবির পণ্য শেষও হচ্ছে দ্রুত। ফলে অনেকে অপেক্ষা করেও পণ্য পাচ্ছে না।
পণ্য কিনতে আসা ক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। গাদাগাদি ঠেলাঠেলি করে লাইনে দাঁড়িয়ে তারা পণ্য কিনছেন। প্রয়োজনের তুলনায় পণ্য সরবরাহ কম ও নির্দিষ্ট সময়ের অনেক পরে ট্রাক আসায় এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে। রাজধানীর খিলগাঁও, মালিবাগ, মুগদা, রামপুরা ও প্রেসক্লাব এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়।
খিলগাঁও রেলগেট কাঁচাবাজারের কাছে ফ্লাইওভারের নিচে টিসিবি ট্রাকের সামনে শত শত ক্রেতার দীর্ঘ সারি দেখা যায়। পুরুষদের লাইন যেমন দীর্ঘ, তেমনি নারীদের লাইনও অনেক লম্বা। নারী ক্রেতারা ধাক্কাধাক্কি করছে পণ্য নিতে। একই অবস্থা দেখা যায়, মুগদা এলাকার ট্রাকেও। সেখানে ক্রেতাদের লাইন অনেক দীর্ঘ। চৈত্রের দুপুরের খাঁ খাঁ রোদেও গাদাগাদি করে লাইনে দাঁড়িয়ে পণ্য কিনছেন ক্রেতারা।
রহিমা নামের এক ক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন- ‘সেই সকাল থাইক্যা লাইনে দাঁড়াইছি। অহনো জিনিস কিনতে পারি নাই। এক কেজি ডাইল, এক কেজি চিনি আর এক কেজি তেল দিতাছে। লাইনে ফাঁকা রাখলে মাঝখানে আরেকজন ঢুইক্যা যায়। তাই ঘেইষ্যা দাঁড়াইছি।’ তবে বিক্রেতাদের এসব দেখার সময় নেই। তারা দ্রুত পণ্য দিয়ে ক্রেতাদের বিদায় করছেন। এক কেজি করে তেল, ডাল ও চিনির প্যাকেজ ১৯৫ টাকায় বিক্রি করছেন। টিসিবি পণ্যের বর্তমান মূল্য হচ্ছে- মসুর ডাল ৫৫, চিনি ৫০ এবং তেল ৯০ টাকা কেজি। কোথাও কোথাও আবার দুই কেজি ডাল, দুই কেজি চিনি এবং দুই কেজি তেল এরকম প্যাকেজ করে বিক্রি করা হয়।
খিলগাঁও ফ্লাইওভারের নিচে টিসিবির পণ্য বিক্রেতা মো. ছালাম বলেন, প্রতিদিন ১০টা থেকে এখানে আমরা ট্রাকে পণ্য বিক্রি করি। আজ (সোমবার) আসতে দেরি হয়ে গেছে। আমরা মসুর ডাল, তেল ও চিনি বিক্রি করছি। প্রতি লিটার তেল ৯০ টাকা, প্রতিকেজি ডাল ৫৫ টাকা, প্রতিকেজি চিনি ৫০ টাকায় বিক্রি করছি। প্রথম ঘণ্টায় মসুর ডাল ও তেল শেষ হয়ে গেছে। এজন্য ক্রেতাদের অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। আমরা কি করব টিসিবি যে পরিমাণ পণ্য দেয়, আমরা তাই বিক্রি করি। স্বাস্থ্যবিধির কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, মানুষ না মানলে কি করব। কে কার আগে লাইনে দাঁড়াবে, এ নিয়ে ঠেলাঠেলি ধাক্কা শুরু হয়। কেউ মানতে চায় না। আমরা পণ্য বিক্রি করব, নাকি লাইন মেনটেন করব। আসলে মানুষ নিজ থেকে সচেতন না হলে জোর করে সচেতন করা যায় না। পণ্য কিনতে আসা কাদির মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি, এখন শুনি মসুর ডাল নেই, তেল নেই। এত কষ্ট করে দাঁড়ানোর পরে যদি শুনি মাল নেই তাহলে কেমন লাগে।
জানা গেছে, গত ১ মার্চ থেকে রাজধানীসহ সারা দেশে আসন্ন রমজান মাস উপলক্ষে ন্যায্যমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় শুরু করেছে টিসিবি। টিসিবির পণ্য দেশের সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় টিসিবির মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এ লক্ষ্যে ঢাকা শহরের ৫০টি স্থানে ট্রাকের মাধ্যমে টিসিবি পণ্য বিক্রি হচ্ছে।
ঢাকায় যেসব স্থানে টিসিবির পণ্য বিক্রি হচ্ছে- প্রেসক্লাব, সচিবালয় গেট, দিলকুশা/বাংলাদেশ ব্যাংক, যাত্রাবাড়ী বাজার, ইত্তেফাক মোড়, শান্তিনগর বাজার, ডিসি অফিস, শাহজাহানপুর বাজার, শ্যামলী মোড় ন্যাম গার্ডেন, গাবতলী/টেকনিক্যাল, বাংলা কলেজ, সাভার বাজার, খামারবাড়ী, আনন্দ সিনেমা হল (ফার্মগেট), বেগুনবাড়ী, মিরপুর-১ মাজার রোড, নন্দিপাড়া কৃষি ব্যাংক, উত্তরা/আবদুল্লাহপুর, আদাবর/মনসুরাবাদ, হাজী ক্যাম্প, শেওড়াপাড়া, ৬০ ফিট (ভাঙা মসজিদ), মিরপুর-১০ গোলচত্বর, মিরপুর-১১, মিরপুর-২/১২, মিরপুর-১৩ দিগন্ত সমবায় সমিতি, মিরপুর-১৪ কচুক্ষেত, আনসার ক্যাম্প মিরপুর, ভাসানটেক বাজার, কালশী (ইসিবি), পলাশি ছাপড়া মসজিদ, জিগাতলা/ধানমন্ডি সরকারি কলোনী, শাহ সাহেব বাজার/আজিমপুর, বছিলা, মতিঝিল সরকারি কলোনী, মধ্যবাড্ডা, সাতারকুল বাজার, বনশ্রী বাজার, মেরাদিয়া বাজার, মুগদা, গোপীবাগ কমিউনিটি সেন্টার, শনির আখড়া, সারুলিয়া বাজার, গুলশান ভাটারা বাজার, উত্তর বাড্ডা বাজার, ভিকারুননিসা ১০নং ইস্টার্ন হাউজিং গেট, কারওয়ান বাজার, কলমিলতা বাজার, রামপুরা বাজার, মালিবাগ বাজার, বাসাবো বাজার, ধলপুর কমিউনিটি সেন্টার, মৌচাক, খিলগাঁও তালতলা, কাপ্তান বাজার, শোয়ারীঘাট/নবাবগঞ্জ সেকশন, রাজলক্ষী/জসিমউদ্দিন ও তেজগাঁও গুদামের পেছনে। সূত্র: ইনকিলাব

আরো পড়তে পারেন:  মর্মান্তিক দৃশ্য মৃত মাকে জাগানোর চেষ্টা, শিশুটির দায়িত্ব নিলেন শাহরুখ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

DSA should be abolished
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...
আরো পড়তে পারেন:  প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, বাংলাদেশ এখন ২৮তম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *