১৫ হাজার বাংলাদেশিকে ফেরৎ পাঠাতে চায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো

 

করোনাভাইরাসের প্রভাবের কারণে ১০-১৫ হাজার বাংলাদেশীকে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশ ফেরত পাঠাতে চায়। করোনাভাইরাস মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর শ্রমবাজারে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করেছে। এ কারণে কয়েকটি দেশ অবৈধ শ্রমিকদের ফেরত নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এসব তথ্য জানান। তিনি আরও জানান, এমনকি সেসব দেশের কারাগারে আটকদেরও পাঠানোর কথা বলছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের ধারণা এমন শ্রমিকের সংখ্যা সর্বোচ্চ ১০ থেকে ১৫ হাজার হতে পারে।

এদিকে বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো এই সময়ে তাদের দেশ থেকে প্রবাসী কর্মী কমানোর চেষ্টা করছে। এমন পরিস্থিতিতে আমরা যদি প্রবাসীকর্মীদের ফিরিয়ে না আনি এবং তাদের অনুরোধের জবাবে হ্যাঁ বা না, কিছু না জানাই তবে পরবর্তী সময়ে এই দেশগুলো আমাদের কাছ থেকে আর লোক নেবে না। সেজন্য আমরা আনছি তবে উৎসাহ দেখিয়ে আনছি না। না আনলে অসুবিধা হবে, এজন্য আনছি, তাদেরকে বলেছি পাঠাও কিন্তু খুব অল্প অল্প করে আমরা আনার চেষ্টা করব। বিদেশের জেলে থাকা বাংলাদেশিদের দেশে পাঠানোর জন্য তারা তাড়া দিচ্ছে। আমরা এই বিষয়েও দেখেশুনে কাজ করছি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো তাদের খরচে বিশেষ বিমানে আমাদের প্রবাসীদের দেশে পাঠাবে। প্রথম পর্যায়ে কুয়েত থেকে ৩৫০ ও সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৪৪০ জন দেশে আসবে। একইভাবে ওমান, কাতার ও লেবানন অবৈধ শ্রমিকদের পাঠাতে চায়।

তিনি বলেন, বিদেশ থেকে যারাই আসবে তাদেরকে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে মেডিকেল চেকআপ করা হবে এবং সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ১৪দিন কোরেন্টিইনে থাকতে হবে। আমাদের প্রতি সপ্তাহে ৩-৪ হাজার মানুষকে কোরেন্টিনে রাখার সক্ষমতা আছে।

বুধবার এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভারতে লকডাউন বাড়ানোর কারণে আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ভাড়া করা ফ্লাইটে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা হচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রবাসী কর্মী কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে প্রত্যেকের পরিবার ৩ লাখ টাকা করে পাবে। প্রবাসীরা দেশে ফিরে আসার সঙ্গে সঙ্গে বিমানবন্দরে তাদের ৫ হাজার টাকা যাতায়াত খরচ দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ফিরে আসা প্রবাসী কর্মীদের দেশে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হতে ৫ থেকে ৭ লাখ টাকা ঋণ দেওয়া হবে।

আরো পড়তে পারেন:  মার্কিন নিষেধাজ্ঞা অকার্যকর করে আবার ভেনিজুয়েলায় ইরানি ট্যাংকার

সূত্র জানিয়েছে, সৌদি আরব থেকে বুধবার রাতে সৌদি এয়ারলাইন্সের বিশেষ বিমানে ৩৬৬ বাংলাদেশী দেশে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে ১৩২ জন ওমরাহ করতে গিয়ে আটকা পড়েছিলেন। বাকিরা অবৈধ শ্রমিক, যাদের কিছু সংখ্যক সৌদি কারাগারেও আটক ছিলেন।

 

সূত্র: যুগান্তর

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  ‘ভিসার মেয়াদ নিয়ে চিন্তার কোনও কারণ নেই’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *