স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করবে যে সবজি

ব্রকোলি । ছবি সংগৃহীত

ক্যান্সার হলে একজন মানুষ এমনিতেই ভেঙে পড়ে। কারণ একে তো ব্যয়বহুল চিকিৎসা তার ওপরে প্রাণনাশের ভয়। সব কিছু মিলিয়ে এক জন ক্যান্সার আক্রান্ত মানুষ মানসিকভাবে প্রচুর ভেঙে পড়ে। তাই ক্যান্সার রোগ প্রতিরোধ ইচ্ছে সবচেয়ে ভালো উপায়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু-এর একটি সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, প্রতি বছর প্রায় ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার মানুষ নতুন করে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছেন। আর ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে এই রোগে।

তাই খাবার ও জীবনযাত্রার প্রতি নজর দিতে হবে। চিনি, লবণ খাওয়ার অভ্যাস কমালেই এই রোগ থেকে দূরে থাকা যায়। ক্যান্সারে নিয়ে সারা বিশ্বে নানা গবেষণায় উঠে এসেছে ম্যালিগন্যান্সি ঠেকানোর উপায়।

সম্প্রতি কয়েকটি গবেষণাপত্রে দাবি করা হয়েছে, ক্যান্সারের টিউমারের বৃদ্ধি (ম্যালিগন্যান্ট টিউমার) ঠেকাতে ব্রকোলি হয়ে উঠতে পারে অত্যন্ত উপকারি একটি খাবার। বিশেষ করে স্তন ক্যান্সার ঠেকাতে এই সবজি জাদুর মতো কাজ করে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর সমীক্ষা অনুসারে, ২০১৭-’১৮-তে পৃথিবীতে প্রায় ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার মানুষ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গিয়েছেন ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার মানুষ।

জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক ম্যালিগন্যান্ট টিউমারের বাড়বৃদ্ধি রুখতে গবেষণা চালিয়েছেন দীর্ঘ দশ বছর। প্রধান গবেষক ইনগ্রিড হ্যারের মতে, ব্রকোলির বিটা-ক্যারোটিন, ফ্ল্যাভোনয়েড, লিউটেন, ক্যারটিনয়েড এবং জিক্সানথিন-এর মতো একাধিক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট উপাদান একাধিক গুরুতর রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। তবে ক্যান্সারের বেলায় এই সবজি আরও একটু বিশেষ ভূমিকা রাখে।

পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ব্রকোলিতে থাকা সালফোরাফেন নামক ভেষজ যৌগ প্রায় ৭৫ শতাংশ ক্ষেত্রেই ম্যালিগন্যান্ট টিউমারের বৃদ্ধি ঠেকাতে সক্ষম। শুধু ক্যান্সারে নয়, ব্রকোলি হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমায় বলে দাবি হ্যারের।

ব্রকোলির পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়ামের অন্যতম প্রধান জোগানদার। এগুলি স্নায়ুতন্ত্র ও হাড়কে সুস্থরাখে।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

আরো পড়তে পারেন:  আর্মেনিয়াকে অস্ত্র দিচ্ছে রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্র: অভিযোগ তুরস্কের

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

DSA should be abolished
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...
আরো পড়তে পারেন:  ইউরোপের কোথায় কেমন ‘লকডাউন’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *