সৌদি জোটকে সহায়তা বন্ধের প্রস্তাবে ট্রাম্পের ভেটো

ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের যুদ্ধে সমর্থন ও সহায়তা বন্ধের একটি প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রস্তাবটি চলতি মাসে মার্কিন পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে অনুমোদিত হয়েছিল। উচ্চকক্ষ সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যরাও বিলটিতে সমর্থন দিয়েছিলেন।

২০১৭ সালের জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেওয়ার পর এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ট্রাম্প কোনো বিলে ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগ করলেন। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের অর্থ পেতে জারি করা জরুরি অবস্থা রুখতে কংগ্রেসের একটি প্রস্তাবে গত মাসে প্রথমবার তিনি ভেটো দিয়েছিলেন।

এদিকে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা ট্রাম্পের ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগের সমালোচনা করেছে। তারা বলেছে, হুতিদের বিরুদ্ধে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের যুদ্ধে সমর্থন ও সহায়তা বন্ধের প্রস্তাবে ট্রাম্পের ভেটো প্রমাণ করে ইয়েমেনে সংঘাতের জন্য যুক্তরাষ্ট্রই দায়ী।

অন্যদিকে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থাগুলো বলেছে, ট্রাম্পের এ ভেটো দেওয়ার অর্থ দাঁড়াচ্ছে, ইয়েমেনে সংঘাত আরো দীর্ঘ হবে। সেখানে আরো রক্তপাত হবে। আরো নারী, শিশু ও সাধারণ মানুষের মৃত্যু ঘটবে।

ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের পর ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিরুদ্ধে উচ্চকণ্ঠ হতে থাকে মার্কিন রাজনীতিকদের। এরই ধারাবাহিকতায় সৌদি জোটকে সহায়তা বন্ধের গ্রস্তাবটি মার্কিন পার্লামেন্টের উভয় কক্ষেই অনুমোদিত হয়। ট্রাম্প ওই গ্রস্তাবকে ‘অপ্রয়োজনীয়’ অ্যাখ্যা দেন। এটি মার্কিন প্রেসিডেন্টের সাংবিধানিক ক্ষমতাকে খর্ব করার ‘বিপজ্জনক’ প্রয়াস বলেও মত দেন তিনি।

প্রেসিডেন্টের ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগের প্রতিবাদ জানিয়েছেন নিম্নকক্ষের ডেমোক্র্যাট স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। সূত্র : রয়টার্স, এএফপি।

সূত্র: কালেরকন্ঠ

আন্তর্জাতিক আরো প্রতি মূর্হর্তের খবর জানুন এখানে

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *