সবাইকে চুমু খেতে চান ‘করোনামুক্ত’ ট্রাম্প

কয়েক দিন আগেই হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফিরেছিলেন। এবার জোরকদমে নির্বাচনী প্রচার শুরু করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর এটাই তার প্রথম নির্বাচনী সভা। সোমবার ফ্লোরিডায় সেই প্রচার সভায় ঝড় তুললেন ট্রাম্প। অনুগামী-সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বললেন, “আমি করোনাকে হারিয়ে দিয়েছি। সবাই বলছে আমি সুস্থ। আরও শক্তিশালী অনুভব করছি নিজেকে।” এদিন সমর্থকদের মাস্ক বিলি করেন ট্রাম্প। কিন্তু স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে নিজে তা পরেননি।

তবে এদিন বিতর্কও পিছু ছাড়েনি ট্রাম্পকে। জনতার উদ্দেশে তার একটি মন্তব্য নিয়ে সমালোচনা করেছেন বিরোধীরা। তিনি জনতার উদ্দেশে বলেন, “আমি সবাইকে চুমু খাব, পুরুষদেরও খাব এবং সুন্দরী মহিলাদেরও চুমু খাব। আমি সবাইকে দীর্ঘ চুম্বন করব।” ট্রাম্পের এ মন্তব্যেই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। পুরোপুরি করোনামুক্ত না হয়েই কীভাবে তিনি সবাইকে চুমু খাওয়ার কথা বলছেন তা নিয়ে হতবাক সবাই। বরাবরই তার জনসভায় দ‚রত্ববিধির চিহ্নমাত্র থাকে না। এদিন ফ্লোরিডার সভাতেও তাই দেখা গেল। না সোশ্যাল ডিস্টেন্সিং না কারও মুখে মাস্ক! যদিও হোয়াইট হাউসের চিকিৎসকরা ট্রাম্পকে ফিট সার্টিফিকেট দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু সচেতনতার অভাব ট্রাম্পের সভায় লক্ষ্যণীয় ছিল।

প্রসঙ্গত, স¤প্রতি করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ঝুঁকি নেই বলে সার্টিফিকেট দিয়েছেন হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক শন কোনলি। গত রবিবার তিনি জানান, আর জ্বর আসেনি ট্রাম্পের। উপসর্গও প্রায় আর নেই। তাই আর আইসোলেশনেও থাকার প্রয়োজন নেই ট্রাম্পের। এমনটা জানিয়ে হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক বিবৃতিও প্রকাশ করেছেন। সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। সূত্র: কালেরকণ্ঠ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  রাজধানীর যেসব এলাকা করোনার ‘রেড জোন’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *