সংবাদ উপস্থাপনার এমন হাল কেন? সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ঝড়

 

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বিজয় টিভির এক সংবাদ পাঠিকা বিশেষ ধরনের ব্লাউজ পড়ে সংবাদ উপস্থাপনা করায় সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে সমালোচনার শিকার হয়েছেন এ উপস্থাপিকা। বিষয়টি অশালীন ছিল দাবি করে এ ধরনের পোশাক পরে তার সংবাদ উপস্থাপনা করা উচিত হয়নি বলে জানিয়েছেন বিভিন্ন টেলিভিশনের সংবাদ পাঠকরা।

গত শুক্রবার (৯ আগস্ট) রাত ১১টার বিজয় টিভির সংবাদ উপস্থাপনায় আসেন চ্যানেলটির সংবাদ উপস্থাপিকা সাজিয়া আফরোজ। এসময় তাকে একটি স্লিভলেস ডিজাইনের খোলামেলা ব্লাউজ পরতে দেখা যায়। যেটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তবে বিষয়টিকে ইতিবাচক ভাবে দেখছেন বিজয় টিভির image উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন এনটিভির সংবাদ পাঠক রাইসুল হক। ফেসবুকে তিনি লিখেন, ‘সংবাদ উপস্থাপনার ক্ষেত্রে এই ধরনের পোশাক কতটা আমাদের ডিসেন্ট প্রতিনিধিত্ব করে? আর আমাদের সিনিয়রদের দেখানো পথটাকে অসম্মানিত করে। হয়তো আমি ব্যাকডেটেড। পোশাকের ক্ষেত্রে আমার মনে হয় বিজয় টিভি কর্তৃপক্ষকে আরো সচেতন হওয়া দরকার।’

এটিএন নিউজের সিনিয়র সংবাদ উপস্থাপক সাবিনা সাবী লিখেছেন, প্রেজেন্টেশন টিমকে গণমাধ্যমে নিউজ রুমের সবচেয়ে অবহেলিত জাতি বলে বিবেচনা করা হয়। নিউজরুম থেকে যখন সবাই মাথা উচু করে নিজের সম্মান নিজের মেধাকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য লড়াই করছেন তখন এই গুটিকতেক প্রেজেন্টারদের গ্লামার সর্বস্ব হয়ে ঝুলে থাকার চেষ্টা নেহায়েত লজ্জার। পার্সোনাল লাইফ আর পাবলিক লাইফ এক করার প্রয়োজন নাই। নিউজরুমে যখন পা দিয়েছেন তখনই মাথায় ঢুকিয়ে নেবেন যে নিউজরুমের যে জায়গায় কাজ করেন না কেন দিনশেষে আপনি একজন সাংবাদিক। প্লিজ সবাই কাদা ছোঁড়াছুড়ি না করে কথাগুলো যদি মাথায় ঢুকিয়ে নেই সকলের মঙ্গল হবে। এটাই আমার বিশ্বাস!

সংবাদ পাঠকদের সংগঠন ন্যাশনাল ব্রডকাস্টার অ্যাসোসিয়েশন (এনবিএ) এর যুগ্ম সম্পাদক ও মাই টিভির সিনিয়র সংবাদ উপস্থাপক ডা. সাকলায়েন রাসেল জানান, একজন সংবাদ উপস্থাপিকা একটি টিভি চ্যানেল নয় পুরো গণমাধ্যমেরই প্রতিনিধিত্ব করে। তাই সংবাদ উপস্থাপিকা হিসেবে এমন পোশাক পরা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এতে আমাদের গণমাধ্যম কিংবা দেশীয় সংস্কৃতির পরিচয় বহন করে না।

তিনি ব্যক্তিগতভাবে যে পোশাকই পরিধান করেন না কেন সেটা বিবেচ্য বিষয় নয়। তবে যখন সংবাদ পাঠের মাধ্যমে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিত্ব করছেন সেক্ষেত্রে শালীনতার বিষয়টি তাঁর মাথায় থাকা উচিত ছিলো। বিষয়টি ইতোমধ্যে আমরা বিজয় টিভি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। আশা করি তারা বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করবেন।

এ ব্যাপারে বিজয় টিভির নির্বাহী পরিচালক নায়লা বারী সাংবাদিকদের জানান, বিজয় টিভি বিনোদনমূলক চ্যানেল হিসেবেই পরিচিত। এ চ্যানেলের মাধ্যমে আমরা বাংলাদেশের সংস্কৃতি এবং বিনোদনকে তুলে ধরার চেষ্টা করি। ওইদিন নিউজ প্রেজেন্টার শাড়ি এবং ব্লাউজ পড়েছিলো তবে ব্লাউজটি ফ্যাশন্যবল ছিল। এটি স্টাইলের একটি অংশমাত্র।

পদ্মা নদীর মাঝিতে কপিলার চরিত্রের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাঙালি একসময় ব্লাউজ পড়তো না। পদ্মা নদীর মাঝিতে আমরা কপিলার চরিত্রে তাই দেখেছি। কিন্তু সভ্য সমাজে ব্লাউজ একটি অপরিহার্য অংশ। ফলে এ ডিজাইনটিকে মোটেও খারাপ বলে আমি মনে করি না। কারণ বর্তমানে সব ফ্যাশন হাউজগুলো স্লিভলেস ব্লাউজ প্রমোট করে। তাহলে নিউজে নয় কেন?

সূত্র: আমাদের সময়

দেশের আরো প্রতি মূর্হর্তের খবর জানুন এখানে

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

আরো পড়তে পারেন:  যে মসজিদে প্রতিদিন ৩০ হাজার মানুষকে বিনামূল্যে ইফতার করানো হয় (ভিডিওসহ)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *