শোভনের হারের একাধিক কারণ

 

অভ্যন্তরীণ কোন্দল এবং কিছুটা বিদ্রোহের জেরে ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগ থেকে ভিপি (সহসভাপতি) প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের পরাজয় হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে সিঙ্গেল ভোটের প্রত্যাশা এবং জনপ্রিয়তার বিচারে প্রতিপক্ষের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে থাকায় প্রত্যাশিত জয় পাননি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি। শোভনের পরাজয়ের ঘটনায় ছাত্রলীগে নেতাকর্মীদের অনেকেই অস্বস্তিতে পড়েছেন।

বলা হচ্ছে মূলতঃ এই চারটি কারণই ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের জয়ের পথে বাধা হয়ে ছিল বলে মনে করছেন ডাকসু নির্বাচনকেন্দ্রিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত ছাত্রলীগের কয়েকজন নীতিনির্ধারক নেতা।

নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পরও শোভনের ইতিবাচক ভূমিকা বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে। তিনি নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরের সঙ্গে কোলাকুলি করে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন।

কেউ কেউ বিশেষ করে ভিপি পদে বিদ্রোহী প্রার্থী সোহানুর রহমান খানের নেতৃত্বাধীন বিদ্রোহী প্যানেলের দিকে সন্দেহের আঙুল তুলেছেন তারা। প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেও এই প্যানেলের সমর্থক নেতাদের বিরুদ্ধে নিষ্ফ্ক্রিয়তার অভিযোগও তোলা হচ্ছে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর ক্যাম্পাসের প্রিয় মুখ। তার তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে ছিলেন শোভন। এর নেতিবাচক প্রভাবও পড়েছে নির্বাচনে। বাইরে থেকে খুব একটা স্পষ্ট না হলেও আঞ্চলিকতার প্রভাব ছিল ডাকসু নির্বাচনে। কিন্তু উত্তর জনপদের রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এ ক্ষেত্রে দক্ষিণ জনপদের নুরুল হক নুরের সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে পারেননি বলে অনেকেই মনে করছেন।

সূত্র: দৈনিক সমকাল

দেশের আরো প্রতি মূর্হর্তের খবর জানুন এখানে

এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে ফেইসবুক পেজটি লাইক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *