রাষ্ট্রীয় অর্থ লোপাট করে দলছুটদের নিয়ে কারসাজি: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, ‘সরকার রাষ্ট্রীয় অর্থ লোপাট করে দলছুটদের দিয়ে নতুন দল বানানোর কারসাজি করছে। বিএনপি ও সমমনা দলগুলো থেকে লোক ভাগানোর জন্য বিভিন্ন সংস্থাকে ব্যবহার করছেন। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) যে নির্দেশনা দিচ্ছেন, সে অনুযায়ী তারা কাজ করছেন। নানাভাবে প্রলোভন দেখিয়ে অদ্ভুত অদ্ভুত নামে নতুন দলে নিয়ে যাচ্ছেন। নমিনেশন ও টাকাপয়সার লোভ দেখিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এটা একটা নির্লজ্জ, ঘৃণ্য ও জঘন্য কাজ।’

শুক্রবার সন্ধ্যায় এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনগণের কাছে যাওয়ার কোনো উপায় নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জিতবেন না তিনি। এজন্য নির্বাচনকে সামনে রেখে যত ধরনের গণবিরোধী কাজ আছে সব করছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে জনগণকে দমন করার জন্য নানা পদক্ষেপ নিয়েছেন।’

তিনি বলেন, বিএনপির চলমান আন্দোলনকে দমন করার জন্য সরকারের দলীয় এবং রাষ্ট্রীয় বাহিনীকে একত্রিত করা হয়েছে। দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, রাষ্ট্রশক্তিকে সাজানো হয়েছে দলীয় চেতনায়। সরকার গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে বিকশিত না করে, বিচার বিভাগ, প্রশাসন, নির্বাচন, র্যাব, পুলিশকে কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়- সেই প্রচেষ্টা তারা চালিয়েছে। নিজেদের পছন্দের লোক নিয়োগ দিয়েছে। তারাই আজকে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে সরকারে লক্ষ্য, উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করছে। আওয়ামী লীগ তাদের যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে নিজস্ব একটা বাহিনী তৈরি করেছে; যা জনগণ ও গণতান্ত্রিক শক্তির বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে।

রিজভী আরও বলেন, ‘একটা গণবিরোধী সরকার যে প্রহসনের নির্বাচন করে, সেই একই কায়দা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুসরণ করছেন। যেমনটা ২০১৪, ২০১৮ সালে করেছে, এখনো সেটা করছে। কারণ জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল কখনো অন্যদলের নেতাকর্মীকে ভাগিয়ে নেয় না। দলের মধ্যে নানা সময়ে সুবিধাবাদী, উৎসৃষ্টভোগীরা ঢুকে পড়ে। আর এই লোকগুলোকেই তারা পায়।’

আরো পড়তে পারেন:  আমানের আত্মসমর্পণকে কেন্দ্র করে আদালত চত্বরে বাড়তি সতর্কতা

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘গণমাধ্যমে জেনেছি সারা দেশে ৪২৮টি র্যাবের ক্যাম্প বানানো হয়েছে। এদের কাজ জনগণ যাতে কোনো বিস্ফোরণ না ঘটে। সামনের একতরফা নির্বাচনে শেখ হাসিনা (প্রধানমন্ত্রী) যে মাস্টার প্ল্যান করেছেন, তা বাস্তবায়ন করার জন্য তারা বেপরোয়াভাবে গ্রেফতার করছেন। বৈশাখী ঝড়ের মতো অভিযান চলছে। এটা অব্যাহত রাখতে আজকে সারা দেশে র্যাবের ৪২৮টি কেন্দ্র করা হয়েছে।’

বিএনপির সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চুর গ্রেফতার হওয়ার ঘটনা তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘শুক্রবার সকালে পেশাজীবীদের একটি অনুষ্ঠান শেষে ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চুকে গ্রেফতার করছে র্যাব। তাকে গ্রেফতারের যে দৃশ্য এটাই হচ্ছে বিস্ময়কর। বাংলাদেশে এরা (আওয়ামী লীগ সরকার) যদি আরও কিছুদিন টিকে, তাহলে কোনো ভদ্রলোক বাংলাদেশে বাস করতে পারবেন না। যারা দেশে ক্যাসিনো গড়ে তুলেছেন, একের পর এক টাকা লুট করেছেন, নাম প্রকাশ হয়েছে তারা এখন দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আমরা কোন দেশে বাস করছি। আমরা এই গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

Source link

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  সীমান্তে বিজিবি সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে বিএসএফ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *