যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের সঙ্গে সব চুক্তি বাতিল করল ফিলিস্তিন

 

জর্ডান নদীর পশ্চিম তীর জোরপূর্বক দখল ও অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের সঙ্গে সব চুক্তি বাতিল করেছে ফিলিস্তিন।

মঙ্গলবার ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে এ যাবত করা সব চুক্তি বাতিলের ঘোষণা দেন।

ফিলিস্তিনের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ওয়াফা’র বরাতে আলজাজিরা ও টিআরটি এ খবর জানিয়েছে।

বিবৃতিতে মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, তিনি এখন থেকে তেল আবিবের সঙ্গে পিএলও’র সই করা সব চুক্তি বাতিল করার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে করা কোনো সহযোগিতা চুক্তি আর মেনে চলবেন না।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিন মুক্তি সংস্থা (পিএলও) এবং ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষ আজ থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল সরকারের সঙ্গে সই করা নিরাপত্তা সমঝোতাসহ সব চুক্তি এবং এসব চুক্তিতে দেয়া সব প্রতিশ্রুতি বাতিল ঘোষণা করল।

মাহমুদ আব্বাসের বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, আমরা মনে করি ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর দখলদারিত্বের সম্পূর্ণ দায় মার্কিন প্রশাসনের। ফিলিস্তিনি জনগণের স্বার্থবিরোধী যেসব পদক্ষেপ ইসরাইল নিচ্ছে তার জন্য মূলত দায়ী মার্কিন প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, পশ্চিম তীর ও জর্ডান উপত্যাকা ফিলিস্তিনি অঞ্চল। ১৯৬৭ সাল থেকে ইসরাইল অবৈধভাবে দখল করে আছে।

সম্প্রতি দখলকৃত পশ্চিম তীরে কয়েক হাজার ইহুদি বসতি সম্প্রসারণের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে ইসরাইল।

ইফরাত নামে এই বসতি সম্প্রসারণ প্রকল্পে প্রায় সাত হাজার আবাসন ইউনিট তৈরি করা হবে। এই পরিকল্পনায় সমর্থন দিয়েছে ওয়াশিংটন।

জর্ডান উপত্যকার বড় একটি এলাকায় এই ইহুদি বসতি সম্প্রসারিত হলে ভবিষ্যতে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা অসম্ভব হয়ে পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

 

সূত্র: যুগান্তর

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *