যশোরে বিএনপি’র ২৩ নেতাকর্মী আটক

গত ২৪ ঘন্টায় যশোরে বিএনপির ২৩ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এসময়ে যশোর সদর, মনিরামপুর ও ঝিকরগাছা উপজেলায় পৃথক ৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে যশোর জেলা বিএনপি।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি জানানো হয়েছে, অবরোধ কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনের শুরুতে মুড়লীসহ বিভিন্ন স্পট থেকে যশোর সদর উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান মিঠু্, সদর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক খুরশিদ আলম বাবু ও তার ছোটভাই অনি সহ ৪ জন নেতাকর্মীকে পুলিশ ও ডিবি কতৃক আটক করার সংবাদ পাওয়া গেছে।

এছাড়াও চৌগাছা উপজেলায় বিএনপির আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম, পৌরের ৬ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি সাহেব আলী ও পৌর যুবদল নেতা ইলিয়াস হোসেন, অভয়নগর উপজেলায় বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মাসুদ রানা, বিএনপি নেতা হাফিজুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম ও হাবিবুর রহমান, কেশবপুর উপজেলায় হাসানপুর ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক আলমগীর কবির, মঙ্গলকোট ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক ইউসুফ আলী, উপজেলা ছাত্রদলের সদস্যসচিব মুস্তাফিজুর রহমান ও পৌর স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক শাহ আলম,
ঝিকরগাছা উপজেলায় নির্বাসখোলা ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য সাইফুল ইসলাম আজাদ, ডাঃ আবু তালেব, হাজিরবাগ ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য আব্দুস সামাদ ও উপজেলা যুবদলের সদস্য খায়রুল ইসলাম, মনিরামপুর উপজেলায় ভোজগাতি ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সাত্তার দফাদার ও চালুয়াহাটি ইউনিয়ন বিএনপি নেতা তুহিন হোসেন, শার্শা উপজেলায় বিএনপি কর্মী রওশন আলী, মাইনুদ্দিন ও কাবিল হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। সব মিলিয়ে যশোরে একদিনে অন্ততঃ ২৩ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
এদিকে আজ বুধবার সকালে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-সম্পাদক শামীম রেজা অর্নবের পাঁচবাড়ীয়াস্থ গ্রীন ক্যাফেতে পুলিশী অভিযান এবং পরবর্তীতে স্টাফদেরকে মারধর করে প্রতিষ্ঠানে তালা দিয়ে বন্ধ করে দেয়। তার গ্রামের বাড়িতেও অভিযান চালানো হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ২ টি মামলা হয়েছে যশোর সদরে। মামলা নং ১০৭/১০৭৮। মামলায় আসামী করা হয়েছে ৭০ জনকে। এছাড়া ১০২/১০৭৩ নম্বর মামলায় আসামী রয়েছেন ৮৭ জন। মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, যশোর জেলা বিএনপির সদস্যসচিব এড. সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু ও যুগ্ম-আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন সহ বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দকে আসামী করা হয়েছে।

আরো পড়তে পারেন:  ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যে কূটনৈতিক সংঘাতের সূত্রপাত হল যেভাবে

তাছাড়া ঝিকরগাছা উপজেলায় দায়েরকৃত মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য সাবিরা নাজমুল ও ঝিকরগাছা পৌর বিএনপির আহ্বায়ক হারুণ অর রশিদ সহ ২৫ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মনিরামপুর উপজেলায় নতুন দায়েরকৃত মামলায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট শহীদ ইকবাল হোসেন ও সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আবু মুছা সহ ২৭ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আলাপকালে যশোর কোতয়ালি থানার ওসি মো. আব্দুর রাজ্জাক মামলার বিষয়টি স্বীকার করে জানান, বিশৃঙ্খলা ও নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টাকালে বিএনপির কয়েকজন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী তাদেরকে আদালতে চালান দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, যারাই অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করবে, জনগণের জান ও মালের ক্ষতিসাধন করবে, তাদেরকে বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Source link

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  যে সব খাতে বিনিয়োগ করলে আপনাকে আয়কর কম দিতে হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *