যমজ সন্তানের নাম রাখল করোনা ও ভাইরাস

দুই যমজ করোনা ্ও ভাইরাসকে নিয়ে মা আন্নামারিয়া। ছবি: সংগৃহীত

মহামারী করোনাভাইরাসের ছোবলে স্থবির হয়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব।

বিশ্বের সবগুলো গণমাধ্যমের শিরোনামে এখন করোনাভাইরাস। সোশ্যাল মিডিয়ায় সারাক্ষণই চর্চিত হচ্ছে করোনা মুক্তির উপায় প্রসঙ্গ।

এরই মধ্যে জানা গেল, এক মা তার যমজ দুই নবজাতকের নাম রেখেছেন- করোনা ও ভাইরাস।

আর্ন্তজাতিক গণমাধ্যম ওয়ার্ল্ড নিউজ ডেইলি জানায়, গত সপ্তাহে উত্তর আমেরিকার দেশ ম্যাক্সিকোতে দুই নবজাতকের নাম করোনা ও ভাইরাস রেখেছেন আন্নামারিয়া হোসে রাফায়েল গঞ্জালেস নামের এক নারী।

অবশ্য এমন নাম রাখার পেছনের উপযুক্ত কারণও জানিয়েছেন ওই নারী।

জানা গেছে, সন্তান গর্ভাবস্থায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন আন্নামারিয়া। আক্রান্ত অবস্থাতেই মেক্সিকোর বেসিক লা ভিলা হাসপাতালে যমজ সন্তান প্রসব করেন তিনি। বিশ্বের করোনা পরিস্থিতিতে সন্তানদের জন্ম হওয়ায় তাদের নাম রাখেন করোনা ও ভাইরাস।

আন্নামারিয়া বলেন, ‘ চারদিকে আতঙ্ক আর মৃত্যুর সংবাদ। আমি নিজেও এই মরণব্যাধিতে আক্রান্ত। এমন সময়ে আমার কোল আলো করে ওরা এল। আতঙ্কের কারণে তাদের কি নাম রাখব সেটা মাথায় আসছিল না। তখন আমার চিকিৎসক পরামর্শ দেন, যেহেতু আমি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সেহেতু তাদের নাম করোনা ও ভাইরাস রাখতে। আমার কাছে মনে হয়েছে বিষয়টি যুক্তিযুক্ত। তাই ওদের নাম করোনা ও ভাইরাস রেখেছি।’

তিনি বলেন, ‘আমার মেয়েটির নাম – করোনা হোসে মিগুয়েল গঞ্জালেস। আর ছেলেটির নাম হচ্ছে ভাইরাস হোসে মিগুয়েল গঞ্জালেস।’

এমন নামকরণের বিষয়ে চিকিৎসক এডুয়ার্ডো কাস্তিলাস বলেন, ‘মজার ছলেই তাকে এমন নাম রাখতে বলেছিলাম। কিন্তু কেন জানি না তিনি বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে নিয়েছেন। এতে আমি হতবাক ও আপ্লুত।’ প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক সংস্থা ওর্য়াল্ডওমিটারের দেয়া তথ্যানুযায়ী, এ পর্যন্ত মেক্সিকোতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৩৭৮ জন। এদের মধ্যে ৩৭ জন মারা গেছেন।

বিশ্বব্যাপী ৯ লাখ ৫৪ হাজার ৩১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে মারা গেছেন ৪৮ হাজার ৫৫৩ জন। সুস্থ্ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন, ২ লাখ ২ হাজার ৯১৩ জন।

আরো পড়তে পারেন:  যে গ্রামের নাম বদলে দিচ্ছে করোনাভাইরাস!

সূত্র: যুগান্তর

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  সৌদিফেরত যাত্রীদের স্ক্রিনিং করা চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *