মুসলিমরা কাঁধে নিলেন মরদেহ, হিন্দু বৃদ্ধের সৎকারে নেই কেউ করোনার ভয়ে

 

করোনা আতঙ্ক কাঁপছে চারদিক। এই মারণ ভাইরাসের কালো থাবা থেকে বাঁচতে  লকডাইনে ভারত। করোনা আতঙ্ক পেয়ে বসেছে দেশটির অনেক নাগরিককে। অতঃপর কেউ একটু অসুস্থ হলেই কিংবা শারীরিক কোনো অসুস্থতা দেখা দিলে, অথবা কারো হলেও, নেপথ্যে ‘করোনা’কে দায়ী করা হচ্ছে।

ভারতে উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের বাসিন্দা রবিশংকরের ক্ষেত্রেও এরকমটাই হয়েছে। বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে মৃত্যু হয় সেই তার। প্রতিবেশীরা মনে করেছিলেন করোনা সংক্রমণের জেরেই হয়তো মৃত্যু হয়েছে রবিশংকরের। তাই শেষ দেখাটুকুও কেউ দেখতে আসেননি।

পাড়া-প্রতিবেশী তো আসেনই-নি। এমনকী আত্মীয়-স্বজনরাও মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন অসহায়, শোকাহত পরিবারটির কাছ থেকে। তাহলে, সত্‍কার কী করে হবে? চিন্তায় পড়ে যান রবিশংকরের পরিবার। কারণ শ্মশান পর্যন্ত কাঁধে করে নিয়ে যাওয়ারও যে কেউ নেই!

এদিকে আবার রবিশংকরের পাড়ার পাশেই রয়েছে মুসলিম অধুষ্যিত এক এলাকা। খবর জানাজানি হতেই, একদল মুসলিম যুবক তত্‍ক্ষণাত্‍ চলে আসেন মৃত হিন্দু বৃদ্ধর বাড়িতে। জানতে পারেন, কাঁধ দেওয়ার কিংবা সত্‍কার করার কেউ নেই।

অসহায় পরিবারের চরম বিপদ দেখে ওই মুসলিম যুবকরাই তার পরিবারকে আশ্বাস দেন যে, সত্‍কারের সমস্ত ব্যবস্থা তারাই করবেন। মাথায় ফেজ টুপি, আর মুসলিম যুবকদের মুখে তখন ‘রামনাম সত্য হ্যায়’ ধ্বনি। কাঁধে করে শ্মশান অবধি নিয়ে রবিশংকরের সত্‍কারের ব্যবস্থাও তারাই করলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিওই এখন ভাইরাল।

 

সূত্র: প্রথম বার্তা

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  রাজশাহীতে করোনাভাইরাস শনাক্তের কিটস নেই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *