বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০ র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের দুরবস্থা

 

যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কুয়াকুয়ারেলি সাইমন্ডস (কিউএস) গতকাল বুধবার সারা বিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নতুন বিষয়ভিত্তিক র‍্যাংকিং প্রকাশ করেছে। ২০২০ সালের এ র‌্যাংকিংয়ে দেখা গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি), বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো হাতেগোনা কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় পেছনের সারিতে স্থান পেয়েছে।

এবারের বিষয়ভিত্তিক র‌্যাংকিংয়ে দেখা গেছে, কম্পিউটার সায়েন্সে বুয়েট বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মাঝে এগিয়ে রয়েছে। তাদের অবস্থান ৩৫১-৪০০ এর মাঝে। এর পরের স্থানটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। তাদের অবস্থান ৫০১-৫৫০ এর মাঝে। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৫৫১-৬০০ এর মাঝে।

পদার্থবিদ্যায় একমাত্র বুয়েট স্থান পেয়েছে ৫৫১-৬০০ এর মাঝে।

এছাড়া বিজনেস ম্যানেজমেন্টে ঢাবি ৩৫১-৪০০ এর মাঝে এবং নর্থ সাউথ ৪০০-৪৫০ এর মাঝে রয়েছে।

র‌্যাংকিংয়ে অর্থনীতিতে ঢাবি ৩৫১-৪০০ এর মাঝে রয়েছে।

বিষয়ভিত্তিক র‌্যাংকিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বুয়েট ৩৫১-৪০০ এর মাঝে রয়েছে। এছাড়া এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর র‌্যাংকিংয়ে বুয়েট ২০৭-এ রয়েছে। সারা বিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ‘কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং’-এ বুয়েটের অবস্থান ৮০১-১০০০ এর মাঝে।

বুয়েটের মতোই ২০২০ সালের কিউএস র‌্যাংকিংয়ে ঢাবির অবস্থান দাঁড়িয়েছে ৮০১-১০০০ এর মাঝে। ২০১৬ সালের জরিপে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক অবস্থান ছিল ৬০১+। ২০১৭ সালে এসে বৈশ্বিক র‌্যাংকিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান হয় ৭০১+। ২০১৮ সালে গিয়ে আরো কিছুটা অবনমন হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান দাঁড়ায় ৭০১-৭৫০তম। এরপর ২০১৯ সালে এসে বড় অবনমন হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান দাঁড়ায় ৮০১-১০০০তম। এ বছরেও সেই অবস্থানে রয়েছে।

কিউএস সাবজেক্ট র‌্যাংকিংয়ে এবার ঢাবির অবস্থান ৩৫১-৪০০। এছাড়া এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ঢাবির অবস্থান ১৩৫তম।

এবারের র‌্যাংকিংয়ে ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বেশ উন্নতি দেখা গেছে। তাদের ৫৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ের উন্নতি এবং ২৯টির অবনতি দেখা গেছে।

ভারতের কম্পিউটার সায়েন্সের শীর্ষস্থানে রয়েছে আইআইটি মুম্বাই, আইআইটি দিল্লি (৫১-১০০), এর পরের অবস্থান রয়েছে আইআইটি কানপুর, আইআইটি খড়গপুর ও আইআইটি মাদ্রাজ (১০১-১৫১)।

র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ ১০-এ আছে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়

আরো পড়তে পারেন:  শরীরে জ্বর থাকলে জানিয়ে দেবে ফোন

১. ইউনিভার্সিটি অব কেমব্রিজ (পয়েন্ট- ৩৮)
২. হারভার্ড ইউনিভার্সিটি (৩৫)
৩. ইউনিভার্সিটি অব অক্সফোর্ড (৩৪)
৪. ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলে (৩২)
৫. স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি (৩০)
৬. এমআইটি (২১)
৭. ইটিএইচ জুরিখ (১৩)
৮. লন্ডন স্কুল অব ইকনোমিক্স (১৩)
৯. ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, লস অ্যাঞ্জেলস (১১)
১০. ইয়েল ইউনিভার্সিটি।

 

সূত্র: কালের কন্ঠ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  যেসব সাহাবি নবীর প্রহরী ছিলেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *