প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর বার্ষিক সম্মেলনে অংশগ্রহন কারিদের জন্য সতর্কবার্তা

প্রগতি লাইফের কক্সবাজার সম্মেলন-২০১৮ সফল হোক !
.
বরাবারের মতো এবারও আমাদের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে সফল সংগঠক গন যারা কক্সবাজার সম্মেলনের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছেন। তাদের সকল কে আমার পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। যারা প্রথম বারের মতো যাচ্ছেন তাদের জন্য এবং পুরাতনদের জন্য রিমাইন্ডার হিসেবে কিছু জরুরী নির্দেশনা স্মরন করিয়ে দিচ্ছি। 
.
এক-যাত্রাপথে সিনিয়রদের নির্দেশনার বাইরে কোথায় যাবেন না। বাস থেকে নামতে হলে অনুমতি নিয়ে নামুন। কোন কিছুর প্রয়োজন থাকলে বা জরুরী কোন কিছুর প্রয়োজন হলে দায়িত্ব্যপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করুন। কক্সবাজার পৌছ হোটেল রুম বুঝে নিতে সিনিয়রদের সাথেই থাকুন, অযথা তাড়াহুড়া করবেন না। মনে রাখবেন, এখানে শুধুমাত্র তারাই এসেছে যারা কোম্পানীর সেরা কর্মকর্তা। অতএব, প্রত্যেকের প্রতি সম্মান বজায় রাখুন। 
.
দুই- যেখানেই ভ্রমনে যাবেন না কেন অবশ্যই গ্রুপ করে যাবেন। একাকী অপরিচিত কোন স্থানে ঘুরতে বের হবেন না। নিজেদের মধ্যে একটি টিম তৈরি করে পরস্পর সাথে থাকার চেষ্টা করুন। যানবাহন ভাড়া করার সময় অভিজ্ঞ লোকদের কথা বলতে দিন। নইলে এক টাকার ভাড়া দশ টাকায় যেতে হতে পারে। 
.
তিন- সমূদ্রের সৈকতে কিছু ফট্রোগ্রাফার আছে যারা হাইরেজুলেট ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে দেওয়া কথা বলতে পারে। ছবি যদি তুলতেই হয় তাহলে প্রথমে দর কষাকষি করে নিবেন এবং কতগুলো ছবি প্রিন্ট করে আনবে সেটা তাকে স্পষ্ট করে বলে নিবেন। নতুবা আপনার অজান্তে তোল সকল ছবি প্রিন্ট করে এনে টাকা দাবি করতে পারে। এতে ঝামেলার পড়তে পারেন কারন তাদের সিন্ডিকেট খুব স্ট্রং। পাশাপাশি প্রচুর টাকা গচ্চা দিতে হতে পারে। 
.
চার-সৈকতে কেনাকাটা করতে গেলে একটু সতর্ক থাকুন। সৈকতে ভ্রাম্যমান বিক্রেতা ছেলে মেয়েরা এক টাকার জিনিসের দাম কুড়ি টাকা চেয়ে বসে, এক্ষেত্রে ঝগরা না করে নিজের মতো দামাদামী করুন, তারা বেজার হবে না। কোন অবস্থায় বিতর্ক করতে যাবেন না। মনে রাখবেন, আপনি আপনার নিজ এলাকা থেকে প্রায় পাচঁশ কিলোমিটার মানে তিনশ মাইলের কাছাকাছি দুরে আছেন। মাস্তানী সব জায়গায় চলবে না ব্রাদার । 
.
পাঁচ- সমুদ্রের বিশালতায় মুগ্ধ হয়ে যাবেন কিন্তু দিশেহারা হবেন না যেন। সমুদ্রে গোশল করতে গেলে অবশ্যই জোয়ার ভাটার বিষয়ে জেনে নিবেন। ভাটার সময় সমুদ্রে গোসল ঝুকিপুর্ণ । স্থানীয় পর্যটন কর্তৃপক্ষের দেওয়া টাইম টেবিল অনুসরন করে সমুদ্রে নামতে হবে। 
.
ছয়- ভ্রমনের সময় হালকা পোষাক পড়ে বের হন। সম্ভব হলে কোম্পানীর দেওয়া গেঞ্জি পড়ে ঘুরতে বের হোন, এতে বহু ক্ষেত্রে সুবিধা পাবেন। বিশেষ করে টেকনাফ বা রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করার সময় কোম্পানীর গেঞ্জি পরিহিত থাকা চাই। এতে বিভিন্ন চেক পোষ্টে বিশেষ সুবিধা পাবেন। প্রগতি লাইফের সম্মেলন বিষয়ে সকল এলিট ফোর্সকে আগেই তথ্য দেওয়া থাকে বিধায় তারাও সহযোগীতা করবে। 
.
সাত- রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গিয়ে কাউকে নগদে দান করার চিন্তাও করবেন না। বিপদে পড়ে যাবেন। তাছাড়া বিষয়টি সেনাবাহিনী তদারকী করে বিধায় তাদের অনুমতি নিয়ে গ্রুপ ভিত্তিক কালেকশান করে তাদের হাতে দিতে পারেন। তারা সঠিক ভাবে রোহিঙ্গাদের হাতে পৌছে দেবে। 
.
আট-হোটেলের রুমে অযাচিত কোন ময়লা, আবর্জনা ফেলবে না। বাকেট থাকলে সেটা ব্যবহার করবেন। কোন প্রবলেম হলে কর্তপক্ষকে জানাতে পারবেন। আপনার রুমের টেলিফোন ব্যবহার করে যে কোন অভিযোগ, চাহিদা জানাতে পারেন। হোটেলের স্টাফদের সাথে দায়িত্বশীল আচরন করুন। আপনার আ্চরন কোম্পানীর ভাবমুর্তি বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে। 
.
নয়-রুম থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় লাইট ফ্যান বন্ধ করতে ভুলবেন না। চাবি রিসেপশানে রেখে যাবেন যাতে আপনার পার্টনার রুমে ঢুকতে আপনাকে খুজতে না হয়। ভয়ের কোন কারন নেই, রুমে কেউ প্রবেশ করতে পারবে না। পুরো হোটেল সিসি ক্যামেরা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। 
.
দশ- হোটেল ত্যাগ করার সময় নিজের সকল জিনিসপত্র বুঝে নিন এবং হোটেলের দেওয়া সকল প্রয়োজনীয সামগ্রী পুর্বের মতোই স্ব স্ব স্থানে রেখে দিন। কোন কিছুই হস্তগত করার চিন্তাও করবেন না। এতে কোম্পানীর সুনামক্ষুন্ন হবে। তাছাড় চুরি করা অবশ্যই ভালো কাজ নয়। 
.
সবার যাত্রাপথ শুভ হোক এবং আল্লাহ পাক সবাইকে নিরাপদে সফর শেষ করে বাড়ি ফেরার তৌফিক দান কররেন এই প্রত্যাশা করছি। সভাই ভালো থাকুন, সুস্থা থাকুন, প্রগতির সাথেই থাকুন।

সূত্র: ইন্সুরেন্স বিডি নিউজ

ইন্সুরেন্স এর আরো খবর আপনার ফেইসবুক পেজ এ পেতে livenewspapertoday এর ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন এখানে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *