পুতিনকে রক্ষায় বাসভবনের সামনে টানেল

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করতে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তার সরকারি বাসভবনে ডিসইনফেকশন টানেল তথা জীবাণুমুক্তকরণ টানেল তৈরি করা হয়েছে।

বাসভবনে ঢোকার আগে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎপ্রার্থী প্রত্যেককে, বিশেষ করে মস্কোর বাইরে থেকে আসা অতিথিদের এ জীবাণুমুক্তকরণ টানেলের মধ্যদিয়ে যেতে হচ্ছে। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আরআইএ’র বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে রয়টার্স।

ইউরোপের ভয়াবহ করোনাপীড়িত দেশগুলোর অন্যতম রাশিয়া। আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পরই রাশিয়া। এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৫ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যুও প্রায় ৮ হাজারের কাছাকাছি।

মৃত্যু ও সংক্রমণের হাত থেকে বাদ পড়ছে না দেশটির সরকারের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারাও। এবার এ সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচাতে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হল প্রেসিডেন্টের জন্য।

বিশেষ এ টানেলটি তৈরি করা হয়েছে মস্কো থেকে সাড়ে ছয়শ’ কিলোমিটার দূরে দেশের পশ্চিমাঞ্চলের পেনজা শহরে।

করোনা মহামারীর প্রাদুর্ভাবের পর থেকে এ শহরেই অবস্থান করছেন পুতিন। টানেল স্থাপন করা হয়েছে রাষ্ট্রপতির সরকারি বাসভবন নোভো-ওগারিয়োভোতে, যেখানে অতিথিদের সঙ্গে দেখা করেন পুতিন। আরআইএ’র প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মাস্ক পরা ব্যক্তিরা টানেলে প্রবেশ করছেন।

সেখানে টানেলের ছাদ ও পাশ থেকে তাদের দেহ স্প্রের মাধ্যমে জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে।

বার্তা সংস্থাটি আরও জানিয়েছে, ওই জীবাণুমুক্তকরণ তরল ওষুধটি মানুষের কাপড় ও শরীরের উপরের অংশে স্প্রের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকোভ এপ্রিলে বলেছিলেন, পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করা যে কোনো ব্যক্তিকে আগে করোনার পরীক্ষা করাতে হচ্ছে।

এক মাস পর পেসকোভ নিজেই তার আক্রান্তের খবর জানান।

রাশিয়ায় করোনা মহামারী ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে প্রায় দুই মাস লোকচক্ষুর আড়ালেই ছিলেন পুতিন। প্রায় ৬০ দিন পর গত বৃহস্পতিবার প্রথমবারের জন্য প্রকাশ্যে আসেন তিনি।

 

সূত্র: যুগান্তর

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

আরো পড়তে পারেন:  অভিনব সচেতনতা ভাইরাল (ভিডিও)
চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণে প্রদীপের ৩৫ জনের প্রাইভেট বাহিনী
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *