পাঠাওয়ের ফাহিমের খুনি হাসপিলের সঙ্গে ‘রহস্যময়’ তরুণী (ভিডিও)

পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও বাংলাদেশি তরুণ উদ্যোক্তা ফাহিম সালেহ হত্যার ঘটনায় তার ব্যক্তিগত সহকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে গ্রেফতার ব্যক্তিগত সহকারীর সঙ্গে এক তরুণীকে দেখা গেছে। আর এ তরুণীকে রহস্যময় হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ডেইলি মেইল

ফাহিমকে হত্যার পর ১৫ জুলাই দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যানহাটনের ক্রসবি স্ট্রিটের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে অভিযুক্ত হাসপিল তরুণীকে সঙ্গে নিয়ে বেরিয়ে যেতে দেখা গেছে। সিসি ক্যামেরার সেই ভিডিও উদ্ধার করা হয়েছে।

গোয়েন্দাদের দাবি, ১৩ জুলাই স্থানীয় সময় দুপুরের পর ম্যানহাটনে নিজের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে হত্যার শিকার হন ফাহিম সালেহ।

হত্যা করে প্রথম দিন হত্যাকারী  চলে যায়। পরদিন আবারো ওই অ্যাপার্টমেন্টে ফিরে আসে। এরপর ইলেকট্রিক করাত দিয়ে ফাহিম সালেহের মরদেহ কয়েক টুকরা করে সেগুলো ব্যাগে ভরার চেষ্টা করে। ওই সময় রক্ত মুছে ফেলারও চেষ্টা করে সে। এ ঘটনার মোটিভ উদ্ধার করতে নামে নিউইয়র্ক পুলিশ। পরে ফাহিম সালেহের ব্যক্তিগত সহকারী টাইরেস ডেভন হাসপিলকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে হাসপিলের নতুন বাসার দূরত্ব এক মাইলেরও কম। যেখানে ওই তরুণীকেও দেখা যায়।

সিসিটিভি ক্যামেরায় দেখা যায়, টি-শার্ট পরা হাসপিলের বাম পাশে সমান তালে হাঁটছেন ওই তরুণী। তার পরনে কালো পোশাক।

ব্রুকলিনের প্রোসপেক্ট পার্কে মূলত বসবাস করেন আসামি হাসপিল। কিন্তু আত্মগোপন করে ম্যানহাটনের ক্রসবি স্ট্রিটের একটি এপার্টমেন্টে ছিলেন তিনি। অল্প সময়ের জন্য সে এটি ভাড়া নিয়েছিলো বলে মনে করা হচ্ছে।

ডেইলি মেইলের হাতে আসা ভিডিও সম্পর্কে বলা হয়, এটা এক্সক্লুসিভ ভিডিও। এতে বুধবার স্থানীয় সময় রাত ১২টা ৩০ মিনিটে ওই তরুণীকে সঙ্গে নিয়ে হাসপিলকে ক্রসবি স্ট্রিটে দেখা যায়। এ ঘটনায় তরুণীকে নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের বিস্তারিত উত্তর দিতে অস্বীকৃতি জানায় নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ফাহিম সালেহকে বৈদ্যুতিক টেজার গান দিয়ে আঘাত করার পর নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যাকারী কালো রঙের স্যুট, সাদা শার্ট ও টাই এবং কালো মাস্ক পরে ফাহিম সালেহের পেছনে পেছনে ওই অ্যাপার্টমেন্টে ঢুকেছিলেন।

আরো পড়তে পারেন:  ৮ জানুয়ারি: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

এদিকে হাসপিলকে ম্যানহাটনের ফেডারেল আদালতে হাজির করা হয়েছে। আদালতে ভার্চুয়াল শুনানি হচ্ছে। ফাহিম হত্যার পর তার লাশ খণ্ডিত করার কাজে ব্যবহৃত ইলেকট্রিক করাত ও পরিষ্কারের সরঞ্জাম অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

 

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

DSA should be abolished
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...
আরো পড়তে পারেন:  শীর্ষ রিপাবলিকান নেতারা বললেন, অভিশংসিত হওয়ার মতোই অপরাধ করেছেন ট্রাম্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *