দোষ লুকাতে ভাইকে সেফটি ট্যাংকে ফেলে হত্যা

ঢাকার দক্ষিণ কাফরুলের বহুতল একটি ভবনের সেফটি ট্যাংক থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। গত বুধবার রাতে ওই যুবক ভবনের উপর থেকে পড়ে যান। পরে সিসি ক্যামেরায় দেখা যায়, ভবনের কেয়ারটেকার আহত যুবককে টেনে নেন।

কেয়ারটেকারের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতেই আজ শুক্রবার সেফটি ট্যাংক থেকে উদ্ধার করা হয় রিফাত নামে ওই যুবককে।

জানা গেছে, বুধবার রাতে হঠাৎ করেই ভবনের উপর থেকে একজন নিচে পড়ে যান। সিসি ক্যামেরায় শব্দ ধারণ না হলেও আহত অবস্থায় বাঁচার যে আকুতি জানাচ্ছেন সে তা বোঝা যাচ্ছে।সাথে সাথেই ভবনের কেয়ারটেকার গ্যারেজের পেছন থেকে ছুটে আসেন, উঁকি দিয়ে দেখেন। যদিও এতো রাতে তার গ্যারেজের পেছনে থাকার কথা না, কেননা ভবনের মূল গেইটের সাথেই তার থাকার রুম। ৮ মিনিট পর আহত ছেলেটিকে টেনে ভবনের ভেতরে সেফটি ট্যাংকে ফেলে দেয় সে।

ওই ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকালে ভবন ফ্ল্যাট মালিকরা রাতে বিকট শব্দের বিষয়ে জানতে চান কেয়ারটেকারের কাছে। তখন কেয়ারটেকার রুবেল বলেন, একজন উপর থেকে পড়েছেন তাকে দু’জন তুলে নিয়ে গেছেন। দায়িত্বে অবহেলার কারণে মুচলেকা নিয়ে বিদায় দেয়া হয় তাকে।

কেয়ারটেকার আর উপর থেকে পড়া আহত ছেলেটি সম্পর্কে মামাতো ফুপাতো ভাই। তার দেয়া তথ্য মতে, শুক্রবার সকালে নিখোঁজ ছেলে রিফাতের সন্ধানে ভবনে আসেন তার মা। বলেন, তার ভাইয়ের ছেলে রুবেল বলেছেন, রিফাতকে সেফটি ট্যাংকে ফেলা হয়েছে। পরে ট্যাংকের মুখ ভেঙ্গে উদ্ধার করা হয় মরদেহ।

এ ঘটনায় ভবনের কেয়ারটেকার রুবেলকে আটক করেছে ত্রিশাল থানা পুলিশ।

সূত্র : চ্যানেল টোয়েন্টি ফোর,  সূত্র: কালেরকণ্ঠ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  ৬ মার্চ: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *