তিনদিন পানি খেয়ে থাকা সেই বৃদ্ধের বাড়িতে এসপি

বৃদ্ধ সোবাহান হাওলাদারের ঝুপড়ি ঘরে খাবার নিয়ে যান পটুয়াখালীর এসপি মোহম্মদ মইনুল হাসান

পটুয়াখালীর দুমকী উপজেলায় টানা তিনদিন পানি খেয়ে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা বৃদ্ধ সোবাহান হাওলাদারের ঝুপড়ি ঘরে খাবার নিয়ে গেলেন পটুয়াখালীর এসপি।

ওই বৃদ্ধের পছন্দের সব প্রকার খাদ্যসামগ্রী নিয়ে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এসপি মোহম্মদ মইনুল হাসান তার বাড়ি উপস্থিত হন।

এর আগে ওই বৃদ্ধকে নিয়ে যুগান্তর অনলাইনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যুগান্তরে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনের সূত্র ধরে এসপি খাবারসামগ্রী নিয়ে তার কাছে হাজির হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানানো হয়।

করোনাভাইরাস মোকাবেলা পরিস্থিতি নিয়ে গত কয়েক দিনের অঘোষিত লকডাউনে অবরুদ্ধ হয়ে পরে পরিত্যক্ত বৃদ্ধ সোবাহান হাওলাদারের জীবন-যাপন। পটুয়াখালীর দুমকী থানার পশ্চিম পাশে একটি ঝুপড়ি ঘরে গত কয়েকদিন পানি পান করে চলে তার জীবন।

এ নিয়ে যুগান্তরের দুমকী উপজেলা প্রতিনিধি একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পরে।

মঙ্গলবার মধ্য রাতে সংবাদটি পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহম্মদ মইনুল হাসানের দৃষ্টিগোচর হয়। ওই রাতেই দুমকী থানার ওসি মেহেদী হাসানকে পাঠিয়ে অসহায় বৃদ্ধের খোঁজ নেন এসপি। ওসির মাধ্যমে ওই বৃদ্ধের পছন্দের খাবারগুলো এসপি নিজে অবগত হন।

বুধবার সকালে বৃদ্ধের পছন্দের সব প্রকার রসালো ফল এবং টানা ১৫ দিনের চাল, ডাল, তেলসহ যাবতীয় একটি পরিবারের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবারসামগ্রী নিয়ে এসপি তার হাতে তুলে দেন।

এ সময় পটুয়াখালী বাউফল সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফারুক হোসেনসহ পুলিশের অন্য কর্মকর্তারা ও গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসপি মাধ্যমে খাবার পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পরে বৃদ্ধ সোবাহান হাওলাদার। তিনি বলেন, দুমকী উপজেলা চত্বরের পাশে গত কয়েকদিন অনাহারে কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি। কেউ তার পাশে খাবার নিয়ে দাঁড়াননি। কত মানুষ তার পাশ থেকে আনাগোনা করেছে। কেউ তারে এক গ্লাস পানিও দেয়নি। অথচ যাদের দেখলে ভয় করি সেই পুলিশ খাবার নিয়ে তার ঝুপড়ি ঘরে।

আরো পড়তে পারেন:  লকডাউনের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট!

এ প্রসঙ্গে এসপি বলেন, মঙ্গলবার মধ্য রাতে বৃদ্ধের অসহায়ত্ব নিয়ে যুগান্তর অনলাইনে একটি প্রতিবেদন তার চোখে পরে। তাৎক্ষণিক তিনি সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশকে অবহিত করে খোঁজ-খবর নেন। বুধবার সব প্রকার খাবারসামগ্রী নিয়ে তিনি ওই বৃদ্ধের বাড়িতে যান। প্রয়োজনে তাকে আরও খাবারসামগ্রী দেয়া হবে বলে জানান এসপি।

সূত্র: যুগান্তর

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

DSA should be abolished
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...
আরো পড়তে পারেন:  ডিভোর্স হলে পৌনে ৬শ’ কোটি টাকা দিতে হবে ট্রাম্পকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *