ট্যাংক-অস্ত্রশস্ত্র ফেলে পালাচ্ছে আর্মেনীয় বাহিনী: ৭০ বছর পর আজানের ধ্বনি

 

পরাজয়ের মাত্রা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে আর্মেনীয় বাহিনীর। একের পর এক আজারবাইজানের ভূমি ছাড়তে বাধ্য হচ্ছে তারা। এদিকে দীর্ঘ ৭০ বছর পর কারাবাখে আজানের ধ্বনি শোনা গেছে। গত মঙ্গলবার আজারবাইজানের সেনারা সেখানে আজান দিয়েছেন।

বিরোধপূর্ণ অঞ্চল নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে তুমুল যুদ্ধ চলছে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে। দুই বার যুদ্ধবিরতির ডাক দিয়েও মানেনি কোনো পক্ষই। এদিকে যুদ্ধরত অবস্থায় কারাবাখের জাবরাইল প্রদেশে আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর একের পর এক আক্রমণের মুখে যুদ্ধক্ষেত্র ছেড়ে পালিয়েছে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর ৫৫৬ রেজিমেন্ট।

বুধবার (২১ অক্টোবর) আজারবাইজানের সংবাদমাধ্যম আজভিশন জানায়, যুদ্ধরত অঞ্চলটিতে ব্যবহৃত বেশ কিছু ট্যাংক রেখে পালিয়ে যায় শত্রুপক্ষ। এছাড়া আরো কয়েকটি অঞ্চলে তীব্র আক্রমণের মুখে আর্মেনীয় বাহিনী সামরিক যানবাহন, গোলাবারুদ, রকেট লাঞ্চার, বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র, গুলিসহ বিভিন্ন সামরিক সরঞ্জামাদি ফেলে পালিয়ে যায়।

বুধবার আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় একটি ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করে। এতে দেখা যায়, বেশ কিছু ট্যাংকের ধ্বংসাবশেষ। রাতভর আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর আক্রমণের মুখে যুদ্ধক্ষেত্রে এসব ট্যাংক রেখে পালিয়ে যায় আর্মেনীয় বাহিনী।

এদিকে তুরস্কের সংবাদমাধ্যম ইয়েনি শাফাক আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানায়, মঙ্গলবার রাত থেকে আঘদারা, ফুজুলি, জাবরাইল এবং গুবাদলি এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধ হয়। এসব এলাকায় ব্যাপক আকারে ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ে আর্মেনীয় বাহিনী। তাদের বেশ কিছু গোলাবারুদ ও বাহিনীর সদস্যদের প্রাণহানি ঘটে।

উল্লেখ্য, নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকৃত। তবে ওই অঞ্চলটি জাতিগত আর্মেনীয়রা ১৯৯০’র দশক থেকে নিয়ন্ত্রণ করছে। এবার নিজেদের এই ভূখণ্ড দখলে নিতে সেপ্টেম্বরের ২৭ তারিখ থেকে আর্মেনিয়ার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে আজারবাইজান। 

সূত্র: ইনকিলাব

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  আইএসকে সহায়তা করতেন ট্রাম্প: দাবি নোবেলজয়ী নাদিয়ার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *