ছুটিতে থাকা কর্মীদের মালয়েশিয়া প্রবেশের দ্বার খুলছে

মালয়েশিয়া থেকে দেশে ছুটিতে আসা বাংলাদেশি কর্মীদের অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে। কারণ তারা করোনা পরিস্থিতিতে দেশে থাকায় পারমিট রিনিউ করতে পারেননি। তাই যাদের ভিসার মেয়াদ আছে তারা নিয়ম মেনে মালয়েশিয়া যেতে পারবেন। আর যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে তারা যাতে আবার মালয়েশিয়ায় যেতে পারেন সে বিষয়ে দেশটির সরকার শিগগিরই ঘোষণা দেবে।

দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনারের সঙ্গে বৈঠকে মালয়েশিয়ার মানব সম্পদমন্ত্রী এ আশ্বাস দেন। গতকাল বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম. সারাভানানের সঙ্গে তার কার্যালয়ে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মহ. শহীদুল ইসলাম এ বৈঠক করেন।

বৈঠকে বাংলাদেশি কর্মী এবং দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়। হাইকমিশনার নবনিযুক্ত মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান এবং করোনাকালে এ সাক্ষাতের সুযোগ দেয়ায় ধন্যবাদ জানান। আলোচনাকালে হাইকমিশনার করোনা নিয়ন্ত্রণের সফলতার জন্য মালয়েশিয়া সরকারের প্রশংসা করেন।

হাইকমিশনার করোনা পরিস্থিতিতে চলাচল নিয়ন্ত্রণ আদেশ সময়ে মালয়েশিয়া সরকার এবং বিভিন্ন এজেন্সির সঙ্গে বাংলাদেশ হাইকমিশন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের কল্যাণে যে কাজ করেছে তা এক অনন্য অভিজ্ঞতা হিসেবে উল্লেখ করেন। বিশেষ করে করোনার কারণে বিপদগ্রস্ত প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের কাছে খাবার সহায়তা পৌঁছে দেয়া, চাকরি ও বেতন নিশ্চিত করা, প্রয়োজনীয় কোয়ারেন্টাইন এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা করার জন্য হাইকমিশনার ধন্যবাদ জানান।

তিনি করোনা পরিস্থিতির শিকার হয়ে বাংলাদেশি কর্মীদের যাতে নিজ দেশে ফিরে যেতে না হয় এজন্য নিয়োগকর্তা পরিবর্তনের সুযোগ প্রদান করায় মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

এ সময় মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী বলেন, ডিটেনশন সেন্টারে থাকা বিদেশিদের বৈধতা দিয়ে কর্মে নিয়োগ এবং অবৈধদের বৈধতা প্রদানের জন্য সরকার কাজ করছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের নাগরিকরা অনেক পরিশ্রমী, দক্ষ এবং আন্তরিক। তারা মালয়েশিয়ার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে। তাই এসব কর্মীর সুরক্ষা প্রদান করা হবে। নিয়োগকর্তারা যাতে বিদেশিকর্মীদের সুরক্ষিত কর্মপরিবেশ, যথাযথ আবাসন এবং নিয়মিত বেতন নিশ্চিত করে সে সব বিষয়ে মালয়েশিয়া সরকার অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েছে।

আরো পড়তে পারেন:  দেরি করে ঘুমাতে নিষেধ করেছেন রাসুল (সা.)

সঠিকভাবে দৃঢ়তার সঙ্গে সরকারের ভিশনারি নেতৃত্ব এবং সফলতার সাথে করোনা মোকাবিলায় সাহসী নেতৃত্ব প্রদান করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী।

 

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

DSA should be abolished
/ জাতীয়, সব খবর
Loading...
আরো পড়তে পারেন:  জুমার নামাজ ঘরে পড়ার ব্যাপারে কোরআনে কিছু বলা হয়েছে কী?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *