খাঁচায় চার বছরের শিশু, গরিলাকে গুলি করে হত্যা

 

চিরিয়াখানায় মা-বাবার সঙ্গে গরিলা দেখতে গিয়েছিল চার বছরের ছোট্ট শিশু। হঠাৎই কোল থেকে পিছলে পড়ে যায় গরিলায় খাঁচায়। মুহূর্তের মধ্যে একটি গরিলা শিশুটিকে টেনে নিয়ে যায় তার সঙ্গে। বেগতিক দেখে শিশুটির প্রাণ বাঁচাতে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ গরিলাটিকে অবশেষে গুলি করে হত্যা করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও শহরের সিনসিনাটির একটি চিড়িয়াখানায় ঘটনাটি ঘটে।

এই ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘুরে ফিরে ভাইরাল হচ্ছে। ভিডিওতে দেখা যায়, কোনোভাবে প্রাচীর টপকে ১০ থেকে ১২ ফুট নিচে গরিলার খাঁচায় মধ্যে পড়ে গিয়েছিল বাচ্চাটি। প্রায় দশ মিনিট ধরে খাঁচায় থাকার পর ওই শিশুটিকে বাঁচাতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। প্রথমে ভাবা হয়, ঘুমের ইনজেকশন দেওয়া হবে গরিলাটিকে। কিন্তু ঘুমের গুলি কাজ করতে কিছুটা সময় লাগে। সেটুকু সময়ের মধ্যে শিশুটির বিপদ হতে পারে এই শঙ্কায় গুলি করে মারা হয় গরিলাকে।

ভিডিওতে আরো দেখা যায়, নিজের হাতে শিশুটিকে আগলে রেখেছিল গরিলা। একটুও আঘাত করেনি। বরং পানি থেকে শিশুটিকে বাঁচানোর জন্য পেছন থেকে জামা ধরে তাকে দাঁড় করিয়ে দেয়। তারপরও গরিলাটিকে হত্যা করা হয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, কিভাবে গরিলাটিকে খুন করা হল। প্রশ্ন আরো উঠছে তাকে না মেরে কোনোভাবে শিশুটিকে বাঁচানো যেত না?

চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গরিলাটির নাম হারাম্বে। ১৮১ কিলোগ্রামের এই আফ্রিকান গরিলাটিকে প্রজননের কারণে টেক্সাসের চিড়িয়াখানা থেকে দু’বছর আগে সিনসিনাটি চিড়িয়াখানায় আনা হয়।

বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির প্রাণী সংরক্ষণের জন্য বিখ্যাত এই চিড়িয়াখানাটি। আমেরিকার সব চেয়ে বেশি ওয়েস্টার্ন লোল্যান্ড প্রজাতির গরিলা রয়েছে এখানে। চিড়িয়াখানায় এমন ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ।

 

সূত্র: আমাদের সময়

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *