‘ওয়েলকাম পার্টি’র অভিনব ভেলকি

 

‘ওয়েলকাম পার্টি’র প্রশিক্ষক, বিকাশ প্রতারক চক্রের নেতৃত্বদানকারী রিজাউল মাতুব্বরকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি। তার বিরুদ্ধে লটারিতে গাড়ি, বাড়ি ও অর্থ পুরস্কারের লোভ দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা একাধিক বিকাশ একাউন্ট নাম্বারের মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ছিল।

সোমবার সিআইডি ঢাকা মেট্রো-পূর্ব এর অধীনে ডেমরা ইউনিট একটি অভিযান চালিয়ে দারুস সালাম এলাকা থেকে ‘ওয়েলকাম পার্টি’র প্রশিক্ষক, বিকাশ প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে।

সিআইডি জানায়, আসামি দীর্ঘ একযুগ ধরে সহযোগীসহ অ্যাপস এর মাধ্যমে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী এবং বিকাশ এজেন্টদের থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানিসহ বিকাশ কোম্পানি থেকে লটারিতে গাড়ি, বাড়ি, অর্থ পুরস্কার পেয়েছেন বলে প্রলোভন দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। এছাড়াও সরকারী ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সরকারী মোবাইল নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন মহলে সরকারী কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিতো চক্রটি।

প্রতারক চক্রটি আমেরিকা ও কানাডা ফেরত প্রবাসী জনৈক দ্বীন মোহাম্মদকে মোবাইলে ফোন করে রবি কোম্পানির কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে লটারির মাধ্যমে গাড়ি বাড়ি পেয়েছে মর্মে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে তার কাছ থেকে ১২২টি বিকাশ একাউন্ট নাম্বারের মাধ্যমে সর্বমোট ৫০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। অতঃপর এই সংক্রান্তে খিলগাঁও (ডিএমপি) থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছিল।

এই মামলার তদন্ত করার দায়িত্ব সিআইডি গ্রহণ করলে প্রতারক চক্রের সদস্যদের ও অবৈধ সিম বিক্রেতা সিম কোম্পানির রি-টেইলারসহ ১০ জনকে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা থানা এলাকা ও তার আশপাশ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামিদের স্বীকারোক্তি মতে ‘ওয়েলকাম পার্টি’র প্রশিক্ষক, বিকাশ প্রতারক চক্রটির নেতৃত্বদানকারী রেজাউল মাতুব্বরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকালে তার কাছ থেকে ১২টি মোবাইল ফোন এবং ৩০টি বিভিন্ন কোম্পানির সীমকার্ড উদ্ধার করা হয়েছে।

আসামি রিজাউল মাতুব্বরের বাবার নাম ছরোয়ার মাতুব্বর ও মাতা সাফিয়া বেগম। সে বর্তমানে ঢাকার দারুস সালাম এলাকায় বসবাস করতেন।

আরো পড়তে পারেন:  বাংলাদেশিদের জন্য চাকরির বিজ্ঞাপন দিল ফেসবুক

 

সূত্র: বিডি জার্নাল

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *