আইইডিসিআরের ধারাবাহিক বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রদান বন্ধ হোক!

আবুল হাসনাত মিলটন

 

প্রতিদিনের করোনা পরিস্থিতি ব্রিফিংয়ের নামে আইইডিসিআরের ধারাবাহিক বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রদান বন্ধ হোক। তারা সারাদিনে ৬০-৭০টা টেস্ট করে বলে ‘আজ নতুন এতটা পজিটিভ টেস্ট পাওয়া গেছে’। এর ফলে আমরা ভাবি, দিনে মাত্র ২/৩টা পজিটিভ, এ আর এমন কী?

আসলে বাস্তবতা ভিন্ন। যেহেতু, সারাদেশে নভেল করোনা-১৯ ভাইরাস টেস্ট করবার মত পর্যাপ্ত টেস্ট কিট বা ল্যাবেরটরি নাই, সেহেতু আমরা জানিও না আসলে ঠিক কতজন এই মুহূর্তে সারা দেশে করোনা ভাইরাসটি শরীরে বহন করছেন, আর তাদের মধ্যে কতজনই বা কোভিড১৯ রোগে আক্রান্ত।

আইইডিসিআরের হিসেব মতে, ১৬ কোটি মানুষের দেশে এই পর্যন্ত দেশে মাত্র ৫৬৪ জনের টেস্ট করা হয়েছে, যার মধ্যে মাত্র ২৭ জন টেস্ট পজিটিভ। গতকাল ৬৫ জনের টেস্ট করা হয়েছে, তার মধ্যে তিনজনের পজিটিভ। অর্থাৎ, দেখা যাচ্ছে দেশের প্রায় সব মানুষই তাদের টেস্টের বাইরে। তারা যাদের টেস্ট করেছেন, তারা representative sample ও নয়। এমতাবস্থায়, এমন পরিসংখ্যান মিডিয়ায় উপস্থাপন করে আমরা আসলে কী পেতে চাইছি? এমনিতেই করোনাকে শুরু থেকে আমরা উপেক্ষা করে আসছি। আর কে না জানে, আমরা করোনার চেয়ে অনেক শক্তিশালী! তার উপর এমন ‘underestimate’ আমাদের উদাসীনতাকে আরও বাড়িয়ে দেবে।

আশার কথা হলো, দেরীতে হলেও সব পর্যায়ে কাজ শুরু হয়েছে। কাজগুলো যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়, সংশ্লিষ্ট সবাই যেন সে চেষ্টাটাই করেন। আর নাগরিক দায়বোধের জায়গা থেকে Social Distancing এর কাজটুকু আমরা যেন করি। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কাউকে যেমন দেখতে যাবেন না, তেমনি তাদের কাউকে বাইরে ঘোরাফেরা করতে দেখলে সোজা পুলিশে ধরিয়ে দেবেন।

প্রিয় দেশবাসী, আপনি যদি আসলেই সবার মঙ্গল চান, তাহলে এই মুহূর্তে সবার থেকে দূরে থাকুন। আপাতত ঐক্য নয়, বরং অনৈক্যেই আমাদের উদ্ধার। একা থাকুন, পরিবারের সাথে থাকুন, মানুষের সমাবেশ থেকে দূরে থাকুন।

আরো পড়তে পারেন:  না আমি শোকার্ত নই, আমি ক্ষুব্ধ-ক্রুদ্ধ

মানুষ মূলত একা!

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

 

সূত্র: পূর্বপশ্চিমবিডি

এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেইসবুক পেজটি লাইক দিন এবং এই রকম আরো খবরের এলার্ট পেতে থাকুন

 আরো পড়তে পারেন:  

Loading...
আরো পড়তে পারেন:  দুর্ধর্ষ মোসাদের 'ছোট্ট চুরি', যেভাবে মহামারি থেকে বাঁচাল ইসরায়েলকে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *